স্বাস্থ্য – Priyota https://www.priyota.xyz Tue, 31 Mar 2020 13:24:11 +0000 bn-BD hourly 1 https://i2.wp.com/www.priyota.xyz/wp-content/uploads/2018/10/cropped-apple-icon-144x144.png?fit=32%2C32&ssl=1 স্বাস্থ্য – Priyota https://www.priyota.xyz 32 32 158673122 হাত ধোয়ার সঠিক নিয়ম https://www.priyota.xyz/health/article/8464/%e0%a6%b9%e0%a6%be%e0%a6%a4-%e0%a6%a7%e0%a7%8b%e0%a6%af%e0%a6%bc%e0%a6%be%e0%a6%b0-%e0%a6%b8%e0%a6%a0%e0%a6%bf%e0%a6%95-%e0%a6%a8%e0%a6%bf%e0%a6%af%e0%a6%bc%e0%a6%ae Mon, 30 Mar 2020 18:05:57 +0000 https://www.priyota.xyz/?p=8464 হাত ধোয়ার নিয়মহাত ধোয়ার উপকারিতা বা গুরুত্ব কি তা সবাই জানি। আজ হাত ধোয়ার সঠিক নিয়ম নিচে আলোচনা করা হল। সঠিক নিয়ম মেনে হাত ধোয়ার অভ্যাস ভ্যাকসিনের চেয়ে ভালো কাজ দেয়। করোনা ভাইরাস ডিজিজ ২০১৯ (কোভিড-১৯) (COVID-19) মোকাবিলা করতে বুঝতে পারছেন যে হাত ধোয়ার প্রয়োজনীয়তা কতটুকু এবং হাত ধোয়া কীভাবে ভ্যাকসিনের কাজ করে। আরও পড়ুন: সর্দি জ্বর […]]]> হাত ধোয়ার নিয়ম

হাত ধোয়ার উপকারিতা বা গুরুত্ব কি তা সবাই জানি। আজ হাত ধোয়ার সঠিক নিয়ম নিচে আলোচনা করা হল। সঠিক নিয়ম মেনে হাত ধোয়ার অভ্যাস ভ্যাকসিনের চেয়ে ভালো কাজ দেয়। করোনা ভাইরাস ডিজিজ ২০১৯ (কোভিড-১৯) (COVID-19) মোকাবিলা করতে বুঝতে পারছেন যে হাত ধোয়ার প্রয়োজনীয়তা কতটুকু এবং হাত ধোয়া কীভাবে ভ্যাকসিনের কাজ করে।

আরও পড়ুন: সর্দি জ্বর হলে কি খাওয়া উচিত

মানুষ অন্যমনস্কভাবে মাঝেমধ্যেই তাদের নাক, মুখ বা চোখে হাত দেয়। এভাবে হাতে থাকা জীবাণু চোখ, নাক বা মুখের মাধ্যমে  শরীরে প্রবেশ করে। তাই সুস্থ এবং ভাইরাস মুক্ত থাকতে হাত ধোয়ার পদ্ধতি জেনে নিয়মিত হাত ধোয়া উচিত। হাত কখন কখন ধুতে হবে এবং হাত ধোয়ার কৌশল গুলি নিচে বিস্তারিত দেয়া হল।

হাত কখন ধোয়া উচিত

  • খাবার তৈরি করার আগে এবং পরে।
  • যে কোন খাবার খাওয়ার আগে।
  • অসুস্থ কারও সেবা করার আগে এবং পরে।
  • পায়খানা এবং প্রস্রাব করার পরে।
  • শিশুর পায়খানা পরিষ্কার করার পরে।
  • শিশুর ডায়াপার বদলানোর পরে।
  • পোষা জীবজন্তু এবং জীবজন্তুর খাবার ধরার পরে।
  • কোনো পশুপাখি ধরা বা পশুপাখির খাবার অথবা পশুর বিষ্ঠা ধরার পরে।
  • হাঁচি দেওয়া, নাক ঝাড়া অথবা কফ ফেলার পরে।
  • ময়লা বা আবর্জনা ধরার পরে।

আরও পড়ুন: রক্তে প্লাটিলেট বাড়ে কি খেলে

হাত ধোয়ার সঠিক নিয়ম

  • হাত ২০ থেকে ৩০ সেকেন্ডের বেশি সময় ধরে ধুতে হবে।
  • শুধু পানি দিয়ে হাত ধোয়া যাবে না, সাবান বা লিকুইড হ্যান্ডওয়াশ ব্যবহার করতে হবে। হাত ঘষে ঘষে হ্যান্ডওয়াশ বা সাবানের ফেনা করে তারপর ভালোভাবে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।
  • এখন সাবান সবখানেই পাওয়া যায়। তাই মাটি বা ছাই দিয়ে নয়, অবশ্যই সাবান এবং পরিষ্কার পানি দিয়ে হাত ধুতে হবে। ময়লা পানি দিয়ে হাত বারবার ধুলেও কোন উপকার হবে না। বরং ময়লা পানি থেকে আপনার হাতে জীবাণু চলে আসতে পারে।
  • হাতের সামনে এবং পেছনের অংশ, আঙ্গুলের ফাঁকে ফাঁকে এবং নখের নিচের অংশ ভালভাবে কচলে পরিষ্কার করে ফেলতে হবে।
  • একবার ব্যবহার করা পানিতে বারবার হাত ধোয়া যাবে না। গামলা বা বাটিতে পানি নিয়ে সেই পানিতে একাধিক জন হাত ধোয়া যাবে না। এতে জীবাণু থেকেই যাবে।
  • হাত ধোয়ার সময় তাড়াহুড়া না করে সময় নিয়ে কনুই পর্যন্ত হাত ধুতে হবে। এতে হাত ধোয়ার উদ্দেশ্য সফল হবে।
  • হাত ধোয়ার পর একই তোয়ালে দিয়ে সবার হাত মোছা যাবে না। হাত মোছার তোয়ালে মাঝেমধ্যে সাবান দিয়ে পরিষ্কার করে শুকিয়ে নিতে হবে।
  • সাবান বা পানি না থাকলে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে পারেন। তবে মনে রাখবেন হাত বেশি ময়লা হলে সাবান এবং পানি দিয়ে হাত ধুতে হবে। হ্যান্ড স্যানিটাইজার বেশি ময়লা হলে হাত থেকে সব জীবাণু বা ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থ দূর করতে পারে না।

তথ্যসুত্র: ইউনিসেফ বাংলাদেশ

আরও পড়ুন: বাচ্চাদের জ্বর হলে করণীয় কি

]]>
8464
পুদিনা পাতার উপকারিতা https://www.priyota.xyz/health/article/8296/%e0%a6%aa%e0%a7%81%e0%a6%a6%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be-%e0%a6%aa%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a6%be%e0%a6%b0-%e0%a6%89%e0%a6%aa%e0%a6%95%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a6%be Thu, 23 Jan 2020 17:48:41 +0000 https://www.priyota.xyz/?p=8296 পুদিনা পাতার উপকারিতাবোরহানি বা সুস্বাদু বিরিয়ানি তৈরি করতে পুদিনা পাতার দরকার হয়। স্বাদ বাড়ানো ছাড়া পুদিনা পাতার উপকারিতা কি কি আপনি জানেন? পুদিনা চা, শরবত, সালাদ, চাটনি যেভাবেই খান উপকার পাবেন। পুদিনা পাতার গুণাগুণ নিচে আলোচনা করা হল। আরও পড়ুন: কাঁচা মরিচের উপকারিতা পুদিনা পাতা দেখতে ছোট হলেও গুণাগুণ কিন্তু অনেক! প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন এ রয়েছে এই […]]]> পুদিনা পাতার উপকারিতা

বোরহানি বা সুস্বাদু বিরিয়ানি তৈরি করতে পুদিনা পাতার দরকার হয়। স্বাদ বাড়ানো ছাড়া পুদিনা পাতার উপকারিতা কি কি আপনি জানেন? পুদিনা চা, শরবত, সালাদ, চাটনি যেভাবেই খান উপকার পাবেন। পুদিনা পাতার গুণাগুণ নিচে আলোচনা করা হল।

আরও পড়ুন: কাঁচা মরিচের উপকারিতা

পুদিনা পাতা দেখতে ছোট হলেও গুণাগুণ কিন্তু অনেক! প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন এ রয়েছে এই পাতায়। বিষাক্ত প্রাণীর বিষ নষ্ট করার ক্ষমতা রয়েছে পুদিনার পাতায়। পুদিনা পাতা এবং লেবু দিয়ে শরবত বানিয়ে খেলে শরীর ঠান্ডা থাকে।

পুদিনা তাড়াতাড়ি হজম করায়। ক্ষুধা বাড়াবার ক্ষমতাও রয়েছে এতে। তাই খাওয়ায় অরুচি হলে বা ক্ষুধা না পেলে, প্রতিদিন পুদিনা পাতার শরবত খেলে ধীরে ধীরে ক্ষুধা বাড়বে এবং অরুচিও দূর হয়ে যাবে। পুদিনার চাটনি রুচি বাড়াতে সাহায্য করে।

আরও পড়ুন: আলুর খোসার উপকারিতা

পুদিনা পাতা শুকিয়ে নিয়ে পুড়িয়ে সেই ছাই দিয়ে দাঁত মাজলে দাঁত শক্ত হয়। যারা পায়ে গোদ সমস্যা নিয়ে ভুগছেন, তারা সেদ্ধ পুদিনা পাতা বেটে মধুর সাথে মিশিয়ে নিয়ে নিয়মিত খেলে উপকার পাবেন।

সর্দি কাশিতেও পুদিনা দারুণ প্রাকৃতিক ঔষধ। চায়ের সঙ্গে পুদিনা পাতা খেলে ঠান্ডা কমে যায়। পাশাপাশি গলার সংক্রমণ ভাল হয়ে যায়। বাচ্চাদের পুদিনা পাতা বেটে মধু ও লবণ মিশিয়ে ২ মাস খাওয়ালে পেটে কৃমি থাকবে না।

আরও পড়ুন: কালোজিরার গুনাগুন

মধুর সঙ্গে পুদিনা পাতা মিশিয়ে খেতে পারলে শরীরের জমে থাকা ক্লেদ ঘামের সঙ্গে বেরিয়ে যায়। র্মূচ্ছা রোগীকে ৪/৫টা পুদিনা পাতা কচলে শুকিয়ে খাওয়ালে র্মূচ্ছা রোগ সেরে যায়।

পুদিনা পাতার উপকারিতা তো জেনে নিলেন। তাহলে কাঁচা বাজার করার সময় মনে করে কিছু পুদিনা বাসায় কিনে আনতে ভুলবেন না।

আরও পড়ুন: ধনেপাতার উপকারিতা জেনে নিন

Photo Credit: Flickr

]]>
8296
পান্তাভাতের উপকারিতা https://www.priyota.xyz/health/article/8102/%e0%a6%aa%e0%a6%be%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%a4%e0%a6%be%e0%a6%ad%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%89%e0%a6%aa%e0%a6%95%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a6%be Sun, 27 Oct 2019 15:28:06 +0000 https://www.priyota.xyz/?p=8102 পান্তাভাতের উপকারিতাবাঙালিরা পহেলা বৈশাখে পান্তা ভাত খায়। কিন্তু এটা একদিন খেলে হবে না। পান্তাভাতের উপকারিতা অনেক। শরীর সুস্থ রাখতে হলে আমাদের মাঝে মাঝে পান্তা ভাত খেতে হবে। পান্তাভাতের উপকার জানলে আপনি সারাবছর সকালে এই ভাত খাবেন। আরও পড়ুন: কাঁচা মরিচের উপকারিতা গবেষণায় জানা গেছে, আগের দিন রান্না করে সারারাত পানিতে ভিজিয়ে রাখা ভাতে রয়েছে বহু উপকারি […]]]> পান্তাভাতের উপকারিতা

বাঙালিরা পহেলা বৈশাখে পান্তা ভাত খায়। কিন্তু এটা একদিন খেলে হবে না। পান্তাভাতের উপকারিতা অনেক। শরীর সুস্থ রাখতে হলে আমাদের মাঝে মাঝে পান্তা ভাত খেতে হবে। পান্তাভাতের উপকার জানলে আপনি সারাবছর সকালে এই ভাত খাবেন।

আরও পড়ুন: কাঁচা মরিচের উপকারিতা

গবেষণায় জানা গেছে, আগের দিন রান্না করে সারারাত পানিতে ভিজিয়ে রাখা ভাতে রয়েছে বহু উপকারি ব্যাকটেরিয়া, যেটা খাবার হজম করতে সাহায্য করে এবং নানা রোগ প্রতিরোধ করে। এই ভাতের মধ্যে ভিটামিন বি ৬ এবং ভিটামিন বি ১২ রয়েছে। যেটা মানবদেহের জন্য খুব উপকারী উপাদান।

গবেষণায় আমেরিকান পুষ্টিবিদ পান্তাভাতের উপকারিতা সম্পর্কে যা জানিয়েছেন তা নিচে বিস্তারিত উল্লেখ করা হল:

  • এই ভাতে হাড় ও পেশি শক্তি বৃদ্ধির উপাদান রয়েছে।
  • পান্তা ভাত খেলে কাজে বেশি শক্তি পাওয়া যায় পাশাপাশি শরীর হালকা লাগে।
  • মানব দেহের জন্য প্রয়োজনীয় অনেক উপকারি ব্যাকটেরিয়া পান্তা ভাতের মধ্যে বেড়ে উঠে।

আরও পড়ুন: সকালে খালি পেটে রসুন খাওয়ার উপকারিতা

  • বার্ধক্য প্রতিরোধ ক্ষমতা রয়েছে এই খাবারে।
  • এটা খেলে পেটের পীড়া ভাল হয় এবং শরীরের তাপের ভারসাম্য ঠিক থাকে।
  • শরীরে সজিবতা ফিরিয়ে আনে এবং কোষ্ঠবদ্ধতা দূর করে।
  • পান্তা ভাত রক্তচাপ স্বাভাবিক রাখে।
  • এটা খেলে অঙ্গ প্রত্যঙ্গ সবল হয়।
  • ত্বক ভাল থাকে এবং এলার্জি জনিত সমস্যা দূর হয় ।
  • সকল প্রকার আলসার দূরীভূত হয়।
  • শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।
  • পান্তাভাতের উপকার হল এটা খেলে মন মেজাজ সবসময় ভাল থাকে।

আরও পড়ুন: পানি পানের উপকারিতা

এটা প্রমানিত, যারা মাঠে কৃষি কাজ করেন, তারা এখনও সকালে পান্তা ভাত খেয়ে মাঠে যান। তারা ৮-১০ ঘন্টা  পরিশ্রমের কাজ করেন। তাদের কিন্তু রোগ বালাই খুব কম হয়।

]]>
8102
যোনিতে ইনফেকশন হলে করণীয় https://www.priyota.xyz/health/article/6329/%e0%a6%af%e0%a7%8b%e0%a6%a8%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%87%e0%a6%a8%e0%a6%ab%e0%a7%87%e0%a6%95%e0%a6%b6%e0%a6%a8-%e0%a6%b9%e0%a6%b2%e0%a7%87-%e0%a6%95%e0%a6%b0%e0%a6%a3%e0%a7%80%e0%a6%af Sat, 14 Sep 2019 14:32:55 +0000 https://www.priyota.xyz/?p=6329 যোনিতে ইনফেকশন হলে করণীয়মেয়েদের যোনিতে ইনফেকশন মোটামুটি কমন রোগ। ভ্যাজাইনাল ইনফেকশন বিভিন্ন কারনে হতে পারে। যোনিতে ইনফেকশন হলে করণীয় কি সেটা নিচে আলোচনা করা হল। নিচে দেয়া ঘরোয়া পরামর্শ মেনে চলতে পারলে নিজে ঘরে বসেই এই গোপন সমস্যার সমাধান করতে পারেন। আরও পড়ুন: সাদা স্রাবের কারন ও প্রতিকার ভেজা, স্যাঁতসেঁতে, বাসি অন্তর্বাস পরে থাকা যাবে না। প্রত্যেকদিন নিজের […]]]> যোনিতে ইনফেকশন হলে করণীয়

মেয়েদের যোনিতে ইনফেকশন মোটামুটি কমন রোগ। ভ্যাজাইনাল ইনফেকশন বিভিন্ন কারনে হতে পারে। যোনিতে ইনফেকশন হলে করণীয় কি সেটা নিচে আলোচনা করা হল। নিচে দেয়া ঘরোয়া পরামর্শ মেনে চলতে পারলে নিজে ঘরে বসেই এই গোপন সমস্যার সমাধান করতে পারেন।

আরও পড়ুন: সাদা স্রাবের কারন ও প্রতিকার

ভেজা, স্যাঁতসেঁতে, বাসি অন্তর্বাস পরে থাকা যাবে না।

প্রত্যেকদিন নিজের অন্তর্বাস নিজে ধুয়ে দিন এবং রোদে ভাল করে শুকিয়ে ব্যবহার করবেন।

ইনফেকশন হলে যৌনাঙ্গে কোনও পারফিউম বা রাসায়নিক ব্যবহার করবেন না।

যৌন মিলনের আগে এবং পরে অবশ্যই যোনি ভালো ভাবে ধুয়ে পরিষ্কার করে ফেলতে হবে।

রাতে শোবার সময় অন্তর্বাস পরে ঘুমবেন না।

আরও পড়ুন: অনিয়মিত পিরিয়ডের সমাধান করার দুটি ঘরোয়া উপায়

বাড়িতে সময় কাটানোর সময় এমন জামা কাপড় পরবেন যেন হাওয়া চলাচল করতে পারে।

মাসিকের সময় একটা স্যানিটারি ন্যাপকিন বেশিক্ষণ পরে থাকা যাবে না।

প্রোবায়োটিক জাতীয় খাদ্য যেমন দই ইত্যাদি বেশি করে খাবেন। এই ধরনের খাবার শরীরে উপকারী ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা বাড়াতে সাহায্য করে।

যৌনাঙ্গের বাইরে জ্বালা যন্ত্রণা হলে খাঁটি নারকেল তেল ব্যবহার করতে পারেন। এটা ইনফেকশনের জ্বালা কমাতে সাহায্য করে।

পরিষ্কার কুসুম গরম পানিতে অল্প পরিমাণ অ্যাপেল সিডার ভিনিগার মিশিয়ে নিয়ে যৌনাঙ্গ ধুতে পারেন। এতে ভ্যাজাইনা ইনফেকশন কমে যাবে।

আরও পড়ুন: উকুন দূর করার প্রাকৃতিক উপায়

ভিটামিন সি জাতীয় খাবার এবং বেশি পরিমাণ পানি খাবেন নিয়মিত। নিজের শরীরের প্রতি সতর্ক এবং পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকলে এ ধরনের ইনফেকশন দ্রুত সেরে যায়।

যোনি সংক্রমণ হলে যদি খুব কষ্ট হয় এবং ইনফেকশন ৪ দিনে একটুও না কমে, তাহলে দেরি না করে অবশ্যই ভাল ডাক্তারের পরামর্শ নেবেন। নিজে কোনও মলম জাতীয় ঔষুধ কিনে ঐ স্থানে লাগাবেন না।

তথ্য সুত্র: ডা. কাজী ফয়েজা আক্তার, এমবিবিএস, এফসিপিএস, এমসিপিএস। কনসালটেন্ট, ইমপালস হাসপাতাল। ও সহকারী অধ্যাপক, গাইনী, প্রসূতি রোগ বিশেষজ্ঞ ও সার্জন।

]]>
6329
হাড় ক্ষয় হলে করনীয় https://www.priyota.xyz/health/article/7699/%e0%a6%b9%e0%a6%be%e0%a6%a1%e0%a6%bc-%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%b7%e0%a6%af%e0%a6%bc-%e0%a6%b9%e0%a6%b2%e0%a7%87-%e0%a6%95%e0%a6%b0%e0%a6%a8%e0%a7%80%e0%a6%af%e0%a6%bc Mon, 02 Sep 2019 17:13:35 +0000 https://www.priyota.xyz/?p=7699 বয়স বাড়ার সাথে সাথে হাড় ক্ষয় হওয়া সমস্যা দেখা দেয়। তাই হাড় ক্ষয় কেন হয় এবং হাড়ের ক্ষয় রোধ করার উপায় জানতে চান অনেকেই। হাড় ক্ষয় হলে করনীয় কি নিচে আলোচনা করা হল। হাড়ের ক্ষয় রোধের উপায় গুলি জানা থাকলে নিয়ম মেনে শরীর সুস্থ রাখতে পারবেন। আরও পড়ুন : রক্তে প্লাটিলেট বাড়ে কি খেলে হাড় ক্ষয়ের […]]]>

বয়স বাড়ার সাথে সাথে হাড় ক্ষয় হওয়া সমস্যা দেখা দেয়। তাই হাড় ক্ষয় কেন হয় এবং হাড়ের ক্ষয় রোধ করার উপায় জানতে চান অনেকেই। হাড় ক্ষয় হলে করনীয় কি নিচে আলোচনা করা হল। হাড়ের ক্ষয় রোধের উপায় গুলি জানা থাকলে নিয়ম মেনে শরীর সুস্থ রাখতে পারবেন।

আরও পড়ুন : রক্তে প্লাটিলেট বাড়ে কি খেলে

হাড় ক্ষয়ের কারণ কি

  • ক্যালসিয়াম যুক্ত খাবার কম খাওয়া
  • হেপারিন, ডাই-ইউরেটিক্স জাতীয় ওষুধ ব্যবহার করা
  • ঠিকমতো শরীর চর্চা না করা
  • অলস জীবন কাটানো
  • জন্মনিয়ন্ত্রণের ইনজেকশন দীর্ঘদিন ব্যবহার করা ইত্যাদি।

নারীদের ক্ষেত্রে এই সমস্যা বেশি দেখা যায়। গর্ভধারণ ও স্তন দানের কারণে নারী দেহে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি হয়। তাই হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বেশি থাকে। এছাড়াও মাসিকের সময় দেহে এস্ট্রজেন হরমোনের অভাব থাকে। এজন্য শরীরের ক্যালসিয়ামের শোষণ কমে যায়। তাই, হাড় ক্ষয় খুব দ্রুত হয়ে থাকে।

হাড়ের ক্ষয় রোধে করণীয়

একটু সতর্ক হয়ে নিয়ম মেনে জীবন যাপন করলেই হাড়ের ক্ষয় রোধ করা সম্ভব। এ কারনে প্রথমে ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার খাদ্য তালিকায় যুক্ত করতে হবে। দুধ, চিজ, পনির এবং বিভিন্ন দুগ্ধজাত খাবারে প্রচুর পরিমাণ ক্যালসিয়াম থাকে। এগুলি খাওয়ার পাশাপাশি বাদাম, ব্রকলি এবং সবুজ শাক সবজি জাতীয় খাবার গ্রহণের অভ্যাস করে ফেলুন।

আরও পড়ুন : সর্দি জ্বর হলে কি খাওয়া উচিত

হাড় ক্ষয় হওয়া থেকে রক্ষা করতে চাইলে প্রতিদিন ব্যায়াম বা শরীরচর্চা করা দরকার। দীর্ঘ সময় বসে বা শুয়ে থাকার অভ্যাস থাকলে সেটা বর্জন করবেন। কাজের ফাকে মাঝে মাঝে একটা হাঁটাচলা করবেন।

প্রেগন্যান্সি এবং ল্যাক্টেশন এর সময় প্রতিদিন ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ওষুধ সেবন করবেন।

বয়স যদি চল্লিশ এর বেশি হয় তাহলে প্রতি বছর দুই বার বডি চেকআপ করাবেন। হাড়ের ক্ষয় থাকলে চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করবেন।

তথ্য সুত্র: ডা. শাহজাদা সেলিম, সহকারী অধ্যাপক, হরমোন ও ডায়াবেটিস বিশেষজ্ঞ, এন্ডোক্রাইনোলজি বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়

আরও পড়ুন : জগিং এর উপকারিতা

]]>
7699
মুখে দুর্গন্ধ হওয়ার কারণ কি https://www.priyota.xyz/health/article/7654/%e0%a6%ae%e0%a7%81%e0%a6%96%e0%a7%87-%e0%a6%a6%e0%a7%81%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%97%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%a7-%e0%a6%b9%e0%a6%93%e0%a6%af%e0%a6%bc%e0%a6%be%e0%a6%b0-%e0%a6%95%e0%a6%be%e0%a6%b0 Mon, 26 Aug 2019 16:18:05 +0000 https://www.priyota.xyz/?p=7654 বেশিরভাগ মানুষের মুখে বিভিন্ন কারনে দুর্গন্ধ হয়। এবং এই মুখে দুর্গন্ধের জন্য অনেক সময় বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হয়। মুখে দুর্গন্ধ হওয়ার কারণ কি জানতে পারলে আপনি নিজেই সমাধান করতে পারবেন। আপনার মুখের দুর্গন্ধ কেন হয় বুঝতে পারলে আপনি নিজেই সমাধান করতে পারবেন। আরও পড়ুন: দাঁত সাদা করার ঘরোয়া পদ্ধতি ১. সাইনাসের সমস্যা থাকলে নাকে ও […]]]>

বেশিরভাগ মানুষের মুখে বিভিন্ন কারনে দুর্গন্ধ হয়। এবং এই মুখে দুর্গন্ধের জন্য অনেক সময় বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হয়। মুখে দুর্গন্ধ হওয়ার কারণ কি জানতে পারলে আপনি নিজেই সমাধান করতে পারবেন। আপনার মুখের দুর্গন্ধ কেন হয় বুঝতে পারলে আপনি নিজেই সমাধান করতে পারবেন।

আরও পড়ুন: দাঁত সাদা করার ঘরোয়া পদ্ধতি

১. সাইনাসের সমস্যা থাকলে নাকে ও গলায় মিউকাস জমে থাকে। তা থেকে দুর্গন্ধ তৈরি হয়। অ্যালার্জির কারণেও মুখে দুর্গন্ধ তৈরি হয়।

২. যদি নিঃশ্বাসে আঁশটে গন্ধ হয়, তাহলে বুঝতে হবে কিডনির সমস্যা রয়েছে। কিডনি ঠিকভাবে কাজ না করলে নাইট্রোজেন তৈরি হয়, যা দুর্গন্ধের জন্য দায়ী।

৩. মুখের দুর্গন্ধ অ্যামোনিয়া ধরনের হলে বুঝতে হবে ডায়াবেটিসের সমস্যা রয়েছে। কারণ দেহে ইনসুলিনের অভাব।

৪.  নিঃশ্বাসে পচে যাওয়া মাংসের দুর্গন্ধ পেলে বুঝতে হবে, টনসিলের সমস্যা রয়েছে। টনসিলের কারণে সালফার উত্পন্নকারী ব্যাকটেরিয়া জন্ম নেয়। যে কারণে দুর্গন্ধ তৈরি হয়।

৫. যদি নিঃশ্বাসে দিনের প্রত্যেক সময়ে সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর যেমন গন্ধ থাকে তাহলে বুঝতে হবে মুখের ভেতর স্যালিভা শুকিয়ে গিয়ে ব্যাকটেরিয়া উৎপন্ন হচ্ছে।

আরও পড়ুন: গ্যাস সিলিন্ডারের মেয়াদ চেনার উপায়

৬. নিঃশ্বাসে যদি টক টক গন্ধ পাওয়া যায়, তাহলে বুঝতে হবে খাবারে প্রোটিনের মাত্রা অতিরিক্ত বেশি হয়েছে। কারণ, কিটোনের ভাঙন।

৭. দাঁতের গোড়ায় বা মাড়িতে সংক্রমনের  কারণে কিংবা পাইরিয়া থেকেও মুখে দুর্গন্ধ হয়।

৮. লিভারের সমস্যাতেও মুখে দুর্গন্ধ তৈরি হয়। নিয়মিত দাঁত মেজেও এই দুর্গন্ধ যায় না।

৯. এসিডিটির  কারণে মুখে দুর্গন্ধ তৈরি করে। আলসার এবং গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা থাকলে অনেক সময় পাইলেরিয়ার সংক্রমণ হয়। তা থেকে মুখে দুর্গন্ধ হতে পারে।

উপরের কারণগুলি পড়ে যদি বুঝতে পারেন এগুলির মধ্যে কোন কারনে আপনার মুখে দুর্গন্ধ হচ্ছে তাহলে সেটার প্রতিকার করুন অথবা ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন।

আরও পড়ুন: মুখের দুর্গন্ধ দূর করার সহজ উপায়

]]>
7654
রক্তে প্লাটিলেট বাড়ে কি খেলে https://www.priyota.xyz/health/article/7477/%e0%a6%b0%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b2%e0%a6%be%e0%a6%9f%e0%a6%bf%e0%a6%b2%e0%a7%87%e0%a6%9f-%e0%a6%ac%e0%a6%be%e0%a6%a1%e0%a6%bc%e0%a7%87-%e0%a6%95%e0%a6%bf Tue, 30 Jul 2019 06:27:41 +0000 https://www.priyota.xyz/?p=7477 এখন ডেঙ্গু জ্বর বেশি হচ্ছে। এই জ্বরে আক্রান্ত বেশির ভাগ রোগীর রক্তে প্লাটিলেট কাউন্ট কমে যায়। রক্তে প্লাটিলেট বা অণুচক্রিকার নরমাল সংখ্যা হল দেড় লাখ থেকে সাড়ে চার লাখ। ডেঙ্গু জ্বর হলে সারা শরীরে প্রচণ্ড ব্যথা হয় এবং ৯০ ভাগ রোগীর প্লাটিলেট কমে যায় বলে জানাচ্ছেন চিকিৎসকরা। এছাড়া বিভিন্ন ভাইরাস জ্বর হলেও প্লাটিলেট কমে যেতে […]]]>

এখন ডেঙ্গু জ্বর বেশি হচ্ছে। এই জ্বরে আক্রান্ত বেশির ভাগ রোগীর রক্তে প্লাটিলেট কাউন্ট কমে যায়। রক্তে প্লাটিলেট বা অণুচক্রিকার নরমাল সংখ্যা হল দেড় লাখ থেকে সাড়ে চার লাখ। ডেঙ্গু জ্বর হলে সারা শরীরে প্রচণ্ড ব্যথা হয় এবং ৯০ ভাগ রোগীর প্লাটিলেট কমে যায় বলে জানাচ্ছেন চিকিৎসকরা। এছাড়া বিভিন্ন ভাইরাস জ্বর হলেও প্লাটিলেট কমে যেতে পারে। প্লাটিলেট কমে গেলে করণীয় কি তাহলে? রক্তে প্লাটিলেট বাড়ে কি খেলে এমন কয়েকটি খাবার সম্পর্কে জেনে রাখুন।

আরও পড়ুন: বাচ্চাদের জ্বর হলে করণীয় কি

পেঁপে: প্লাটিলেট বাড়ানোর জন্য খেতে পারেন পেঁপের জুস। অণুচক্রিকা বাড়াতে সাহায্য করে পেঁপেপাতা। তাই ডেঙ্গু রোগীর জন্য এটা উপকারী। পেঁপেপাতা বেটে রস তৈরি করে পান করতে পারেন। এছাড়া পেঁপেপাতা সেদ্ধ করেও খেতে পারেন।

ডাব: ডাবের পানিতে রয়েছে ইলেট্রোলাইটস বা খনিজ, যেটা ডেঙ্গু জ্বরে খুবই দরকারি উপাদান।

ব্রোকলি: পুষ্টিসমৃদ্ধ সবজি ব্রোকলি’তে রয়েছে ভিটামিন ‘কে’, রক্তে প্লাটিলেট বাড়াতে এটা সাহায্য করে। দ্রুত প্লাটিলেট কমে গেলে প্রতিদিন খাবারে অবশ্যই ব্রোকলি রাখবেন। এতে নানা উপকারী খনিজ এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে।

আরও পড়ুন: সর্দি জ্বর হলে কি খাওয়া উচিত

পালং শাক: ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড এবং আয়রন এর  অন্যতম উৎস হল পালং শাক। শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে পারে এটা। পাশাপাশি রক্তে প্লাটিলেটের সংখ্যা বাড়াতেও এটা উপকারি।

বেদানা: শরীরের প্রয়োজনীয় শক্তি যোগাতে দরকারি খনিজ উপাদান সহ নানা পুষ্টি রয়েছে বেদানায়।দুর্বল শরীরের ধকল কাটিয়ে উঠতে বেদানা খুবই উপকারী। পাশাপাশি আয়রন আছে বলে বলে রক্তের জন্য এটা উপকারী। ডেঙ্গু জ্বর সারাতে এবং প্লাটিলেটের সংখ্যা নরমাল রাখতে এটা উপকারী।

তথ্যসূত্র: এনডিটিভি

]]>
7477
কাঁচা মরিচের উপকারিতা https://www.priyota.xyz/health/article/7204/%e0%a6%95%e0%a6%be%e0%a6%81%e0%a6%9a%e0%a6%be-%e0%a6%ae%e0%a6%b0%e0%a6%bf%e0%a6%9a%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%89%e0%a6%aa%e0%a6%95%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a6%be Wed, 17 Jul 2019 17:51:02 +0000 https://www.priyota.xyz/?p=7204 কাঁচা মরিচ আমাদের দৈনন্দিন খাবারের অতি গুরুত্বপূর্ণ উপদান। কাঁচা মরিচের উপকারিতা কি জানেন? এর স্বাস্থ্য উপকারিতা জানলে আপনি অবাক হবেন। কাঁচা মরিচ খাওয়ার উপকার কি কি বিস্তারিত নিচে আলোচনা করা হল। গরমকালে মসলা জাতীয় খাবারের সঙ্গে কাঁচা মরিচ খেলে সেটা ঘামের সঙ্গে বেরিয়ে যায়। এজন্য শরীর ঠান্ডা থাকে। কাঁচা মরিচ মানবদেহের মেটাবলিজম বাড়িয়ে দিয়ে ক্যালরি […]]]>

কাঁচা মরিচ আমাদের দৈনন্দিন খাবারের অতি গুরুত্বপূর্ণ উপদান। কাঁচা মরিচের উপকারিতা কি জানেন? এর স্বাস্থ্য উপকারিতা জানলে আপনি অবাক হবেন। কাঁচা মরিচ খাওয়ার উপকার কি কি বিস্তারিত নিচে আলোচনা করা হল।

গরমকালে মসলা জাতীয় খাবারের সঙ্গে কাঁচা মরিচ খেলে সেটা ঘামের সঙ্গে বেরিয়ে যায়। এজন্য শরীর ঠান্ডা থাকে।

কাঁচা মরিচ মানবদেহের মেটাবলিজম বাড়িয়ে দিয়ে ক্যালরি পোড়াতে সাহায্য করে।তাই নিয়মিত কাঁচা মরিচ খেলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেড়ে যায়।

চুল ও ত্বক ভালো রাখতে কাঁচা মরিচে থাকা অ্যান্টি অক্সিডেন্ট দারুণ উপকার করে। এছাড়া রক্তনালী এবং তরুণাস্থি গঠনে এটা সাহায্য করে।

আরও পড়ুন: আলুর খোসার উপকারিতা

চর্বি জাতীয় খাবারের সাথে কাঁচা মরিচ খেলে মোটা হওয়ার ভয় থাকবে না। কারণ খাদ্যের সঙ্গে থাকা চর্বিকে কাঁচা মরিচ ধ্বংস করে। এ কারনে মেদ কমিয়ে রাখা সম্ভব। পাশাপাশি কাঁচা মরিচ রক্তের কোলেস্টেরল কমাতে পারে।

দৈনিক একটি করে কাঁচা মরিচ খেতে পারলে রক্ত জমাট বাঁধার ঝুঁকি অনেকটা কমে যায়। এছাড়াও হৃদপিন্ডের নানা রকম সমস্যা কমে যায়।

এতে প্রচুর পরিমাণ বিটা ক্যারোটিন ও অ্যান্টি অক্সিডেন্ট আছে, যেটা কার্ডোভাস্ক্যুলার সিস্টেম কে কার্যকর রাখে।

এতে ভিটামিন এ রয়েছে, যেটা আমাদের দাঁত, হাড় ও মিউকাস মেমব্রেনকে ভালো রাখতে সাহায্য করে। পাশাপাশি এতে ভিটামিন সি রয়েছে প্রচুর পরিমাণে, যা মাড়ি এবং চুলের সুরক্ষা করতে দারুণ কার্যকর।

কাঁচা মরিচে থাকা ক্যাপসাইসিন আমাদের খাবারে থাকা উচ্চমাত্রার চর্বি শুষে নেয়। ফলে শরীরে মেদ রোধ করতে স্বাস্থ্য উপকারিতা অসাধারণ।

আরও পড়ুন: গ্যাসের সমস্যার ঘরোয়া সমাধান

কাঁচা মরিচে থাকা অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও ভিটামিন সি আমাদের শরীরকে সর্দি, জ্বর, কাশি ইত্যাদি থেকে রক্ষা করে থাকে। এছাড়া যে কোনো ধরণের কাটা ছেঁড়া অথবা ঘা শুকানোর জন্য এর কার্যকারিতা বিস্ময়কর।

কাঁচা মরিচ নিয়মিত খেলে নার্ভের বিভিন্ন সমস্যা কমে যায়। এবং ত্বকে সহজে বলিরেখা পড়ে না।

তাই প্রতিদিন খাবার তালিকায় কমপক্ষে একটি করে কাঁচা মরিচ খেতে চেস্টা করবেন। এর অসাধারণ কিছু স্বাস্থ্য উপকারিতা আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন।

]]>
7204
পেয়ারা খাওয়ার উপকারিতা https://www.priyota.xyz/health/article/6976/%e0%a6%aa%e0%a7%87%e0%a6%af%e0%a6%bc%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a6%be-%e0%a6%96%e0%a6%be%e0%a6%93%e0%a6%af%e0%a6%bc%e0%a6%be%e0%a6%b0-%e0%a6%89%e0%a6%aa%e0%a6%95%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a6%be Sun, 19 May 2019 01:01:30 +0000 https://www.priyota.xyz/?p=6976 পেয়ারার উপকারিতা অনেক। এটা যেমন সুস্বাদু, তেমন পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ। দাঁত মজবুত করতে ডাক্তাররা পেয়ারা খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। পেয়ারা খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক আজকে। আরও পড়ুন : ইফতারে খেজুরের উপকারিতা উচ্চ রক্তচাপ সমস্যায় যারা ভুগে থাকেন তারা জানেন কি? পেয়ারা উচ্চ রক্তচাপ সমস্যা নিয়ন্ত্রণে রাখতে অত্যন্ত কার্যকর। শরীরে পটাশিয়াম কম হয়ে গেলে উচ্চ রক্তচাপের […]]]>

পেয়ারার উপকারিতা অনেক। এটা যেমন সুস্বাদু, তেমন পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ। দাঁত মজবুত করতে ডাক্তাররা পেয়ারা খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। পেয়ারা খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক আজকে।

আরও পড়ুন : ইফতারে খেজুরের উপকারিতা

উচ্চ রক্তচাপ সমস্যায় যারা ভুগে থাকেন তারা জানেন কি? পেয়ারা উচ্চ রক্তচাপ সমস্যা নিয়ন্ত্রণে রাখতে অত্যন্ত কার্যকর। শরীরে পটাশিয়াম কম হয়ে গেলে উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা বেড়ে যায়। পেয়ারা শরীরে পর্যাপ্ত পরিমান পটাশিয়ামের যোগান দেয়। তাই উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ রাখতে পেয়ারা খাবেন।

আমেরিকার ‘ইউনাইটেড স্টেটস ডিপার্টমেন্ট অফ এগ্রিকালচার’ এর তথ্যে বলা হয়েছে, প্রতি ১০০ গ্রাম পেয়ারার মধ্যে ৪১৭ মিলিগ্রাম পটাশিয়াম রয়েছে। প্রতিদিন আমাদের শরীরে যে পরিমাণ পটাশিয়াম দরকার তার ৯ ভাগ পাওয় যাবে  ১০০ গ্রাম পেয়ারা খেলে।

হৃদযন্ত্র ভাল রাখতে পেয়ারা অনেক কার্যকর। এতে রয়েছে প্রচুর পলিফেনল এবং ক্যারোটেনয়েড এর মতো অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট যেটা হৃদযন্ত্র সুস্থ রাখতে খুব উপকার করে।

পেয়ারায় প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি রয়েছে, এটা হাড় এবং দাঁতের মাড়ি মজবুত করতে সাহায্য করে।

আরও পড়ুন : আখের রসের উপকারিতা

তাহলে পেয়ারা খেলে কি উপকার হয় জেনে নিলেন, প্রতিদিন পেয়ারা খেতে পারলে অনেক রকম স্বাস্থ্য সমস্যা দূর করতে পারবেন।

]]>
6976